প্রত্যক্ষদর্শীর বর্ণনায় ক্রাইস্টচার্চের হামলা

35

জুমার নামাজের খুতবা শুরুর দুই মিনিটের মধ্যে গুলির শব্দে কেঁপে ওঠে নিউজিল্যান্ডের ক্রাইস্টচার্চের আল নূর মসজিদ। লোমহর্ষক এই হামলায় ৪৯ জনের প্রাণহানির ঘটনা ঘটে। আর সেসময় সেখানে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশি নাগরিক দিদার হোসেন।

লোমহর্ষক সেই ঘটনার তার চোখে দেখা অংশটুকু তিনি বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন, খুতবার দুই মিনিটের মধ্যেই ফায়ারিং শুরু হয়ে যায়। এর সঙ্গে সঙ্গেই কাচ ভেঙে গাড়ির পেছনের দরজা দিয়ে আমি বের হই। এরপর একটি গাড়ির নীচে ঢুকে যাই আমি।তিনি আরও বলেন, গাড়ির নীচে থেকে আমি দেখছিলাম কী হচ্ছে। আমি দেখলাম একটা লোক মসজিদের রাস্তা ধরে গুলি করতে করতে ভেতরে ঢুকছেন। এরপর আমি লাফিয়ে পাশের বাসায় চলে যাই।

দিদার হোসেন বলেন, সেখান থেকে দেখলাম হামলাকারীর গাড়ি পার্ক করা ছিল এবং তিনি গাড়ি নিয়ে চলে গেলেন। এরপর আমি আমার ভাইকে খোঁজার জন্য আবার আসলাম। এসে দেখি লাশ আর লাশ। পাশে কয়েকজন বাঙালি পানির জন্য চিৎকার করছিলেন, আমি তাদের পানি দিয়ে পাশের বাসায় গিয়ে আশ্রয় নেই। ছয় ঘণ্টা পর পুলিশ এসে আমাদের উদ্ধার করে।