Smiley face

চতুর্থ দিন শেষে ১৪১ রানে পিছিয়ে বাংলাদেশ। হাতে আছে ৭ উইকেট। বাংলাদেশের বিপক্ষে প্রথম ইনিংসে ২২১ রানের লিড নিয়ে থামে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ড। তবে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। দলীয় ৪ রানেই ফেরেন আগের টানা তিন ইনিংস হাফসেঞ্চুরি করা তামিম ইকবাল।

ব্যক্তিগত ১০ রানে ফেরেন পুরো সিরিজেই ব্যর্থ হওয়া মুমিনুল হক। অনেকটা সময় চেষ্টা করেও মাত্র ২৯ রানে ফিরে যান ওপেনার শাদমান। দিন শেষে ২৫ রানে মোহাম্মদ মিঠুন ও ১২ রানে সৌম্য সরকার অপরাজিত থাকেন।

দুটি উইকেট নেন ট্রেন্ট বোল্ট। আর একটি নেন হেনরি।

এর আগে ওয়েলিংটন টেস্টের চতুর্থ দিনের শুরু দিকেই দুইবার জীবন পান নিউজিল্যান্ডের অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান রস টেইলর। আর সেই মাসুলই দিলো বাংলাদেশ। ডাবল সেঞ্চুরি করে তবেই ফিরলেন এই অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান। আর দলকে দিয়ে গেলেন বড় সংগ্রহ। শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেট হারিয়ে ২২১ রানে এগিয়ে থেকে ইনিংস ঘোষণা করেন কেন উইলিয়ামসন।

দ্বিতীয় টেস্টের প্রথম দুইদিন বৃষ্টিতে ভেসে গেলেও তৃতীয় মাঠে নামতে পারে বাংলাদেশ-নিউজিল্যান্ড। শুরুটা ভালো হলেও ২১১ রানের বেশি করতে পারেনি টাইগাররা। বল হাতে প্রথম ইনিংসের শুরুটাও ভালো করে বাংলাদেশের পেসাররা।

তৃতীয় দিন শেষ বিকেলে এবাদত হোসেন ও আবু জায়েদ রাহি বেশ চাপে রাখে কিউই দুই ওপেনারকে। মাত্র ৮ রানেই দুই ওপেনারকে ফিরিয়েও দেন আবু জায়েদ। চতুর্থ দিন সকালেও দুই পেসার তাদের ধারাবাহিকতা বজায় রাখতে সক্ষম হন।

কিন্তু দুইবার জীবন পাওয়া রস টেইলর এগিয়ে নিতে থাকেন দলকে। আবু জায়েদের ইনিংসের ১৫তম ওভারের প্রথম বলে শর্ট কভারে দাঁড়িয়ে থাকা অধিনায়ক মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ক্যাচ ছাড়েন। এক বল পরই স্লিপে দাঁড়িয়ে থাকা শাদমানও ছাড়েন টেইলরের তুলে দেওয়া ক্যাচ। সে সময় তার নামের পাশে মাত্রই ২০ রান। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ২০০ রান পূর্ণ করে মোস্তাফিজুর রহমানের বলে ফেরেন।

টেইলরের সঙ্গে লেগে থাকেন অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসনও। দুজন মিলে তৃতীয় উইকেট জুটিতে গড়েন ১৭২ রানের জুটি। ইনিংসের ৪০তম তাইজুল ইসলামের বলে ফিরতি ক্যাচ দিয়ে ৭৪ রানে সাজঘরে ফেরেন উইলিয়ামসন।

Smiley face

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here