Smiley face

আন্তর্জাতিক পোলার বিয়ার ডে’ বা শ্বেত ভাল্লুক দিবস আজ। আন্তর্জাতিক সংস্থা ‘পোলার বিয়ারস ইন্টারন্যাশনাল’ এর আয়োজনে প্রতিবছর ২৭ ফেব্রুয়ারি দিবসটি পালন করা হয়। শ্বেত ভাল্লুক সংরক্ষণ এবং জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কে বিশ্ববাসীকে সচেতন করাই দিবসটির মূল লক্ষ্য বলে জানান আয়োজকরা।

মঙ্গলবার শ্বেত ভাল্লুক শাবকের নতুন একটি ভিডিও প্রকাশ করেছে জার্মানির বার্লিন চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। এর আগে, এখানে জন্মনো দুটি শাবকই মারা যায়। উপযুক্ত পরিবেশ না থাকায় জন্মের ১০ দিনের মধ্যেই ৫০ শতাংশেরও বেশি শ্বেত ভাল্লুক শাবক মারা যাচ্ছে বলে জানায় চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ। তবে, ১২ সপ্তাহ বয়সী শাবকটি শঙ্কামুক্ত এবং সুস্থ রয়েছে বলেও জানানো হয়। এছাড়াও, শ্বেত ভাল্লুক সংরক্ষণে বার্লিন চিড়িয়াখানা, ‘পোলার বিয়ারস ইন্টারন্যাশনাল’ এর সঙ্গে কাজ করছে বলেও জানান এ কর্মকর্তারা।

পোলার বিয়ারস ইন্টারন্যাশনালের নিজস্ব বিজ্ঞানী অ্যালিসা ম্যাককল বলেন, ‘মেরু অঞ্চল ছাড়া শ্বেত ভাল্লুক খুব একটা দেখা যায় না। মানুষ যাতে এদের সম্পর্কে জানতে পারে , আমরা সেই চেষ্টাই করছি। এজন্য আমাদের গবেষণা অব্যাহত রয়েছে।’

সম্প্রতি চীনের সাংহাইতে দুটি শ্বেত ভাল্লুকের প্রদর্শনী হয়েছে। এদিন তাদের মাঝে বিশেষ খাবার পরিবেশন করা হয়।

চীনের সাংহাই হাইচেন ওশান পার্কের পরিচর্যাকারী ঝাও শুয়াং বলেন, ‘প্রথমবারের মতো আমরা এ প্রদর্শনীর আয়োজন করেছি। আজকে শ্বেত ভাল্লুক দুটির জন্য তাদের প্রিয় মাছ, গোশত, ফলমূল ও সবজি দিয়ে বিশেষ এক ধরনের খাবার পরিবেশন করা হয়েছে।’

এছাড়াও, চীনের হারবিনে আর্কটিক ও অ্যান্টার্কটিক অঞ্চলের প্রাণীদের নিয়েও প্রদর্শনীর আয়োজন করা হয়। আর এসবের মূল উদ্দেশ্য জলবায়ুর পরিবর্তন রোধ এবং প্রাণী বৈচিত্র্য রক্ষায় সচেতনতা তৈরি করা। কারণ বৈশ্বিক উষ্ণতার কারণে বরফ গলে প্রতিনিয়তই ধ্বংস হয়ে যাচ্ছে তাদের আবাস্থল। তাই প্রতিবছর ২৭ ফেব্রুয়ারি বিশ্বব্যাপী পালন করা হয় শ্বেত ভাল্লুক দিবস বা পোলার বিয়ার ডে।

Smiley face

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here